Garuda Purana: এই নীতি মানুষের জীবনকে সঠিক দিকে নিয়ে যায়

garuda-purana-summary and principle

Garuda Purana: সব পুরাণের মধ্যে থেকে গরুড় পুরাণকে হিন্দুধর্মে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হয়। এই পুরাণে উল্লেখ আছে জীবনকে বোঝার এবং সুন্দর ভাবে চালানোর জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের। বিশ্বাস করা হয় যে কারো মৃত্যু হলে গরুড় পুরাণ পাঠ করা খুবই শুভ এবং গরুর পুরান পাঠ করলে মৃত ব্যক্তির আত্মা শান্তি পায় বলে মনে করা হয়। কথিত আছে যে গরুর পুরাণ মৃত্যুর পরেই শ্রবণ করা উচিত, তবে এটি একটি ভ্রান্ত ধারনা বলে মনে করা হয়। প্রকৃতপক্ষে, এটি এমন একটি পুরাণ যা একজন ব্যক্তিকে ভাল কাজ করতে অনুপ্রাণিত করে। এই গ্রন্থে জীবন সম্পর্কিত এমন সব নীতির কথা বলা হয়েছে, যা একজন মানুষকে ধর্মের পথ দেখিয়ে পুরো জীবনকে বদলে দিতে পারে।

গরুর পুরাণ – নোংরা পোশাক পরা

গুরুর পুরাণে (Garuda Purana) বলা হয়েছে যে নোংরা পোশাক পরা মানুষের কাছে লক্ষ্মী কখনই আসেন না, কারণ এমন লোকের সঙ্গে কেউ মিশতে চায় না। ব্যবসায় উন্নতি এবং চাকরিতে পদন্নতির জন্য সুন্দর পরিচ্ছন্ন পোশাক দেখে মালিক ও গ্রাহক খুশি হন। সুতরাং কখনও নোংরা পোশাক পরবেন না, না হলে ব্যবসাতে উন্নতি হবে না, চাকরি ক্ষেত্রে পদন্নতিতে বাধা আসবে।

ঘরোয়া টোটকায় দূর হবে খুশকি

গরুর পুরাণ – ভগবানকে ভোগ নিবেদন

গরুড় পুরাণ এ উল্লেখ করা আছে যে ভগবানকে ভোগ নিবেদন ছাড়া খাবার খাওয়া উচিত নয়। কথিত আছে যে বাড়িতে খাবারের স্বাদ নেওয়ার আগে ভোগ ভগবানকে নিবেদন করা হয়, সেখানে কখনই খাবারের অভাব হয় না। আবার এটাও বলা হয়েছে যে খাদ্যকে অসম্মান করা মা  লক্ষ্মীকে ক্ষিপ্ত হন। গরুর পুরাণ অনুসারে, খাবারের অপচয় ঘরে অশান্তি সৃষ্টি করতে পারে।

গরুর পুরাণ – ধর্ম গ্রন্থ পাঠ ও জ্ঞান আহরণ

গরুড় পুরাণে বর্ণিত আছে যে প্রত্যেক মানুষকে অবশ্যই ধর্মীয় গ্রন্থ পাঠ ও তার থেকে জ্ঞান নিতে হবে। এই ধর্ম জ্ঞান সে নিজে জানলে অন্যকেও বোঝাতে পারবে। এটা বিশ্বাস করা হয় যে মানুষের ধর্ম ও কর্ম সম্পর্কে জ্ঞান থাকা উচিত। যখন এটি ঘটে, মানুষ জীবনের আসল উদ্দেশ্য বুঝতে পারে এবং মানুষ সঠিক পথে চলতে সক্ষম হয়।

গ্রহরত্ন কিভাবে কাজ করে মানুষের জীবনে

তপস্যা, মনন ও ধ্যান

গরুড় পুরাণ এ তপস্যা, মনন ও ধ্যান বিশেষ উল্লেখ আছে। এটা বিশ্বাস করা হয় যে ধ্যান করলে জীবনের অনেক সমস্যা দূর হয়। তপস্যা, মনন ও ধ্যান নিয়মিত করলে মন শান্ত হয় এবং ক্রোধও আমাদের থেকে দূরে থাকে। একজন মানুষের রাগ নিয়ন্ত্রণ করা জীবনে সফলতা অর্জন করার মতো। খুব কম মানুষই এটা করতে পারে, কিন্তু এটা করা খুবই জরুরি ও এর জন্য প্রত্যেকের চেষ্টা করা উচিৎ।

follow khobor dobor on google news
Follow Us on Google News

আরও পড়ুন –

মহালয়া কি ? কেন এই দিন এত গুরুত্বপূর্ণ ?

গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা কীভাবে বাড়াবেন

দুর্গা পূজার সময় করুন বাস্তুর এই উপায়গুলি, সৌভাগ্য আসবেই

রাহু কেতুর গোচর ২০২২, কেমন যাবে এই সময় জেনে নিন বৃশ্চিক রাশি থেকে মীন রাশি

Facebook
WhatsApp
Twitter
LinkedIn
Telegram
Email
Pinterest
Twitter